ভবন নির্মাণে চলছে অনিয়মের মহা উৎসব

মরন ফাদে হাজার মানুষের জীবন দেখার নেই কেউ ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা

  বিশেষ প্রতিনিধিঃ  আমিনা খাতুন 

 নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনএর সিধিরগঞ্জে  সানারপার,মৌচাক,মাদানি নগর,এলাকায়,ও ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর  সিটি কর্পোরেশন  ডেমরা,ইস্ট্রানহাউজিং,ডগাইর, সারুলিয়া,মাতুয়াইল,যাত্রাবাড়ী,  কদমতলি,পস্তগলা,কাম্রাঙ্গিরচর,মিরপুর,মহাম্মদপুর,উত্তরা, এলাকা সহ ঢাকার প্রায় সব জাগাতেই মানা হচ্ছে না  কোনো প্রকার ভবন নির্মাণ নীতিমালা এ জেনো অনিয়মের এক মহা উৎসবে পরিণীত হয়েছে এবিষয়ে একাধিক বার লেখালেখি করেও কোন সুরাহা হয়নি, ঘটে যাচ্ছে একের পর এক দুর্ঘটনা কখনো শ্রমিক কখনো নির্মাণাধীন ভবনের  আশেপাশে বসবাস করা সাধারণ মানুষ ও শিশু বাচ্চারা,আবার ওইসব ভবনে বসবাস করা মানুষ গুলাকে অকালে হাঁড়াতে হচ্ছে নিজেদের পড়িবারের তাজা প্রাণ এতিম হচ্ছে সন্তান হচ্ছে সর্বস্বান্ত,পড়িবারের একমাত্র উপার্জন কারি বাবা,আর কত মানুষের প্রাণ গেলে থামবে এই খেলা আমরা কেউ তা বলতে পারিনা,কত পরিবার হারিয়ে গেছে আমাদের মাঝ থেকে, এরকম ঘটনা এখন আমাদের দেশের মানুষের জন্নে নতুন না একাধিক বার এরকম ঘটনা ঘটলেও কারও মাথা বাথ্যা নাই এক জন আরেক জনের উপর দোষ চাপিয়ে পারপেয়ে যায়,কয়দিন বেশ হইছই তারপর আবার শুরু হয়ে যায় আগের রূপ,সরজমিনে অনুসন্ধানে গিয়ে দেখা  যায় (রাজউক)এর কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী যোগ সাজেসে চলছে এই অনিয়ম,তারা গরেছেন অবৈধ  সম্পদের পাহাড়, আর  এই সুযোগে লেভাজ ধারি কিছু অসাধু ভবন মালিক যাদের দেখে বুঝার উপায়নাই এই ধরনের লোক  এই কাজ করতে পারে,অনুসন্ধানে গিয়ে দেখা যায়  নারায়ণগঞ্জ  সিধিরগঞ্জে  মাদানি নগর এলাকায় একাধিক ভবন বিভিন্ন অনিয়মের সাথে ভবনের নির্মাণ কাজ ছালিয়ে যাচ্ছে  তাদের সাথে কথা বলতে গেলে কখনো আল্লাহ নামে মান্সম্মান ভিক্ষা চায় কখনো টাকা দিয়ে নিউজ বা অভিযোগ করতে অনুরধ করে  কখনো দেখে নেয়ার হুমকি, ধর্ম ব্যাবসাই কিছু লোক,

 রাজউক এর সিধিরগঞ্জ থানা এলাকার ইনেস্পেক্তর বিভিন্ন ভাবে অনিয়ম ধরে  ভবন মালিক দের কাছথেকে লাখ লাখ  টাকা নিয়ে থাকেন যা  একাধিক বাড়ির মালিক জানান টাকা না দেয়াতে কয়েক বছর আগে অভিযান চালায় রাজউক, কিছু ভবনের অবৈধ অংশ ভেঙ্গে ফেলা হয়, অদৃশ্য কারনে আবার সেই ভবন গুলি আগের রুপ ফিরে পায় খোঁজ নিয়ে জানতে পারি প্রতেক ভবন থেকে মোটা  অংকরে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে রাজউকের কর্মকর্তারা, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু ভবন মালিক বলেন রাজউক এর অনুমোদন মানেই টাকা আপনার যায়গায় প্রব্ল্রম থাকলেও টাকা না থাকলে ও টাকা তাই আমরাও সুযোগ কাজে লাগাই, টাকার কাছে নিরীহ মানুষ গুলা অসহায় যতগুলা নির্মাণাধীন ভবনে সংবাদ কর্মীরা গিয়েছে সেখানেই হয়রানীর স্বীকার হয়েছে কখনো রাজনৈতিক নেতাদের হাতে কখনো বাড়ির মালিকের কাছে, আবার প্রাণে মেরেফালার হুমকিও দেয়া হয়ে হয়েছে, কিন্তু সংবাদ প্রকাশ কি আর থেমে, থাকে আরও কিছু  রগরগা তথ্য নিয়ে আসছি  পরবর্তী পর্বে

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Back to top button
error: দয়া করে নিঊজ কপি করা থেকে বিরতো থাকুন